ঢাকা, বুধবার - ২৮শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

‘একুশে পদক’ পাচ্ছেন বিদ্যানন্দসহ ২১ ব্যক্তি-প্রতিষ্ঠান

ছবিঃ সংগৃহীত

Share on facebook
Share on whatsapp
Share on twitter
Share on linkedin

দেশের ১৯ বিশিষ্ট নাগরিক এবং দুটি প্রতিষ্ঠানকে এবারের একুশে পদকের জন্য মনোনীত করেছে সরকার।

রবিবার (১২ ফেব্রুয়ারি) সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয় এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে একুশে পদকের জন্য মনোনীতদের নাম ঘোষণা করেছে।

এবার ভাষা আন্দোলনে খালেদা মনযুর-ই-খুদা, বীর মুক্তিযোদ্ধা এ কে এম শামসুল হক (মরণোত্তর) এবং হাজী মো. মজিবর রহমানকে একুশে পদক দেয়া হবে।

আরও পড়ুন  'খালেদা জিয়া'কে মুক্তি দিতে 'শেখ হাসিনা'কে জাতিসংঘের চিঠি

অভিনয়ে মাসুদ আলী খান ও শিমূল ইউসুফ, সংগীতে মনোরঞ্জন ঘোষাল, গাজী আব্দুল হাকিম ও ফজল-এ-খোদা (মরণোত্তর); আবৃত্তিতে জয়ন্ত চট্টোপাধ্যায়, চিত্রকলায় কনক চাঁপা চাকমা, শিল্পকলায় নওয়াজীশ আলী খানকে একুশে পদকের জন্য মনোনীত করা হয়েছে।

মুক্তিযুদ্ধে মমতাজ উদ্দীন (মরণোত্তর), সাংবাদিকতায় মো. শাহ আলমগীর (মরণোত্তর), গবেষণায় ড. মো. আবদুল মজিদ, শিক্ষায় অধ্যাপক ড. মযহারুল ইসলাম (মরণোত্তর) ও বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘরকে একুশে পদক দেয়া হবে।

এ ছাড়া সমাজসেবায় বিদ্যানন্দ ফাউন্ডেশন ও মো. সাইদুল হক, রাজনীতিতে অ্যাডভোকেট মঞ্জুরুল ইমাম (মরণোত্তর) ও আকতার উদ্দিন মিয়া (মরণোত্তর) এবং ভাষা ও সাহিত্যে ড. মনিরুজ্জামানকে একুশে পদককের জন্য চূড়ান্ত মনোনয়ন দিয়েছে সরকার।

‘স্বাধীনতা পুরস্কার’র পর রাষ্ট্রের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ বেসামরিক সম্মাননা ‘একুশে পদক’। মহান ভাষা আন্দোলনের শহীদদের স্মরণে ১৯৭৬ সাল থেকে প্রতিবছর বিভিন্ন ক্ষেত্রে বিশেষ অবদানের জন্য এ পুরস্কার দিয়ে আসছে সরকার।

আরও পড়ুন  নৌকার ভরাডুবি নেত্রকোণায় স্বতন্ত্র প্রার্থীর জয়

পুরস্কার হিসেবে প্রত্যেককে একটি স্বর্ণপদক, এককালীন অর্থ (চেক) ও একটি সম্মাননাপত্র দেয়া হয়ে থাকে।

বরাবরের মতো এবারও আনুষ্ঠানিকভাবে পুরস্কারপ্রাপ্ত ব্যক্তি-প্রতিষ্ঠানের হাতে একুশে পদক তুলে দেয়া হবে।

ট্যাগঃ

আলোচিত সংবাদ