ঢাকা, শুক্রবার - ১২ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

কাপ্তাই রাস্তার মাথায় চাঁদাবাজদের সংঘর্ষের ঘটনা নিত্যদিনের, অসহায় পথচারী (ভিডিও)

ছবি- ভয়েস অফ এশিয়া

Share on facebook
Share on whatsapp
Share on twitter
Share on linkedin

চট্টগ্রাম নগরীর চান্দগাঁও থানাধীন কাপ্তাই রাস্তার মাথায় পুলিশ প্রশাসনের নাকের ডগায় কথিত সিএনজি স্ট্যান্ডে দীর্ঘদিন ধরে টোকেনের নামে চাঁদাবাজি করে আসছিল একদল পরিবহন শ্রমিক নামধারী চাঁদাবাজ।

সিএনজি চালক ও সাধারণ মানুষের অভিযোগ, পুলিশ ও কতিপয় সরকার দলীয় রাজনৈতিক নেতাদের মাসোয়ারা দিয়েই অবৈধ স্ট্যান্ডে দৈনিক লক্ষ লক্ষ টাকার চাঁদাবাজি করছিল। তবে এবার সেখানে ক্ষমতার পালা বদলে সরাসরি প্রশাসনের ছত্রছায়ায় চাঁদাবাজি বন্ধের নামে পুরনো মাল নতুন মোড়কে ক্ষমতা দখল করে সেই একই নিয়মে চাঁদাবাজি করে যাচ্ছে, অবশ্য পুলিশ প্রশাসনের দাবি চাঁদাবাজি এখন বন্ধ।

মঙ্গলবার (৫ মার্চ) সন্ধ্যায় ঘটে গেল অনাকাঙ্কিত ঘটনা। আধিপত্য বিস্তার নিয়ে উভয়পক্ষের মুখোমুখি রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ। যেখানে আহত হয়েছেন পথচারীসহ অনেক সিএনজি চালক। ঘটনায় আহত হয়েছেন একই পরিবারের নারী-পুরুষ ৫ জন।

এলাকাবাসী ও সিএনজি চালক সূত্রে জানা যায়, নতুন করে স্ট্যান্ড পরিচালনা করতে শ্রমিক লীগের ব্যানারে কতিপয় চাঁদাবাজগং প্রশাসনের ছত্রছায়ায় আবুল হোসেনগংদের হঠিয়ে আজাদ-জাফর-রাসেলগংরা সিএনজি স্ট্যান্ড দখলে নিয়ে চাঁদাবাজি করেই যাচ্ছেন। দুই গ্রুপের মুখোমুখি অবস্থানে থমথমে পরিস্থিতি কাপ্তাই রাস্তার মাথা এলাকা। অবশ্য পুলিশের দাবি শ্রমিক সংঘর্ষ।

নবীনরা রেল গেইটের সামনে পাকা রাস্তার উপর সিএনজি, বাস, মালবাহী ট্রাকসহ অন্যান্য যানবাহন থেকে জোর পূর্বক গতিরোধ করে এবং ভয়ভীতি প্রদর্শন করে বলপূর্বক চাঁদা আদায় করছে যা নিয়ে বর্তমানে যানবাহন চলাচল হয়ে পড়েছে ধীরগতি, ফলে ভোগান্তিতে পড়েছেন সাধারণ জনগণ।

আরও পড়ুন  চট্টগ্রামে ২৪ ঘণ্টায় ডেঙ্গু আক্রান্ত ৯৯

গতকাল মঙ্গলবার রাউজান নোয়াপাড়া থেকে ফেরার পথে দুর্ঘটনার কবলে পড়েছেন একই পরিবারের নারী-পুরুষ ৫ জন।

ভুক্তভোগীরা জানান, আমরা রাউজান থেকে শহরের উদ্দেশ্যে পারিবারিক অনুষ্ঠান শেষ করে ফেরার পথে কাপ্তাই রাস্তার মাথা এলাকার রেলগেট এলে আগে থেকেই চলমান সংঘর্ষের কবলে পড়ি। চাঁদাবাজরা আমাদের চোখেমুখে মরিচের গুড়া ছিটিয়ে দিয়ে বেধরক মারধর এবং আমাদের সাথে থাকা মোবাইল ও টাকাপয়সা ছিনিয়ে নিয়ে যায়। স্ট্যান্ডের লোকজন মিলে এমন আঘাত করেছে এখনো একজন চমেক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। আমরা নারী-পুরুষ ৫ জনই আহত হয়েছি, আমরা এ ঘটনার সুষ্ঠ বিচার দাবী করছি। চট্টগ্রাম আদালতে মামলার প্রস্তুতি চলমান। আহত নারী-পুরুষরা স্থানীয় প্রশাসনের অসহযোগীতার কথাও জানান এ প্রতিবেদককে।

আহতদের তথ্য দিয়ে ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন চমেক পুলিশ ফাড়ির দায়িত্বে থাকা অফিসার মঈন।

তিনি জানান, চান্দগাঁও থানাধীন কাপ্তাই রাস্তার মাথা এলাকায় সংঘর্ষে ৫ জন আহত হয়েছেন। ২ জনের অবস্থা ঘুরতর।

আহতরা হলেন-বেবী (৪০), ফারুক (২৯), সুমি আকতার (২৭), সাদ্দাম (৩০), বিলকিচ আকতার (৪৫)। এরা সকলেই নগরীর খুলশী থানাধীন সেগুন বাগান এলাকার বাসিন্দা।

আরও পড়ুন  মালিবাগে ট্রেনে কাটা পড়ে বৃদ্ধের মৃত্যু

মোহরা পুলিশ ফাড়ির আইসি মোনাফ জানিয়েছেন এ ধরনের কোন ঘটনা সম্পর্কে তিনি অবগত নন।

চান্দগাঁও থানার ওসি জাহিদুল কবীর জানান, এলাকার পরিবেশ শান্তিপূর্ণ আছে। আইন শৃংখলার কোন ব্যত্যয় ঘটেনি।

আজাদ-জাফর-রাসেলগংরা আধিপত্য বিস্তার নিয়ে এ ঘটনা ঘটিয়েছেন বলে জানান প্রত্যক্ষদর্শী ও স্থানীয় এলাকাবাসী। কাপ্তাই রাস্তার মাথা এলাকায় এখন থমথমে পরিস্থিতি ও জনমনে আতংক বিরাজ করছে।

ভুক্তভোগী চালক ও এলাকাবাসী জানান, এই সড়কের সবচেয়ে শক্তিশালী চাঁদাবাজ চক্রটির অবস্থান কাপ্তাই রাস্তার মাথা মোহরায়।

খবর নিয়ে জানা যায় রাস্তার মাথার অবস্থান সিটি কর্পোরেশনের মধ্যে। চাঁদাবাজদের যুক্তি এখানে চট্টগ্রাম জেলার নিবন্ধিত নাম্বারের গাড়ি আসতে হলে চাঁদা দিতে হবে। চালকরা বলেছেন আগে টোকেনের দাম ছিল সাত শত টাকা। এখন নতুন টোকেন দাতারা ঘোষনা দিয়েছে নতুন টোকেন নিতে হলে এক হাজার করে দিতে হবে। সড়কে চলাচলকারী সিএনজি চালকদের আরও অভিযোগ এখানে যাত্রী নামিয়ে ফেরার পথে এখান থেকে সিএনজিতে যাত্রী উঠালেই প্রতিবার দিতে হয় দশ টাকা করে চাঁদা।

কাপ্তাই রাস্তার মাথায় চালক যাত্রীদের হয়রানীর দৃশ্য দেখতে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, এখানে সড়কের শৃংঙ্খলা রক্ষার নামে লাঠি হাতে তৎপর আছে ডজন দুই ডজন যুবক। তাদের কেউ খালি সিএনজির বডি ও হুটে লাঠি চালিয়ে স্থান ত্যাগে ব্যধ্য করছে। এমন পরিস্থিতির মধ্যে শিশু নিয়ে থাকা নারী যাত্রীরা আহত হয় বলেও অনেকই অভিযোগ করেছেন।

আরও পড়ুন  ফটিকছড়িতে পিকাপের ধাক্কায় প্রাণ গেলো বৃদ্ধের

সরেজমিনে দেখা যায়, চাঁদাবাজদের কেউ কেউ যানজট এলাকার কিছুটা ফাঁকা জায়গায় দাঁড়িয়ে যাত্রী নিয়ে যাওয়া সিএনজির পথ রোধ করে সহাস্যে দশ টাকা করে চাঁদা নিয়ে ছাড়ছে। চাঁদাবাজ চক্রটির হাতে জিম্মী হয়ে থাকা চালক ও যাত্রী সকলেই বলেছেন কাপ্তাই সড়কে গণপরিবহন (বাস) সংখ্যা খুবই কম। একারণে কাপ্তাই চন্দ্রঘোনা রাঙ্গুনিয়া, রাউজানের শহরমুখি মানুষ নির্ভরশীল সিএনজি অটোরিক্সার উপর।

খবর নিয়ে জানা যায়, কাপ্তাই রাস্তার মাথা ছাড়াও চালক সমিতির নামে টোকেন বানিজ্য চলে কাপ্তাই সড়ক পথে থাকা বিভিন্ন সিএনজি ষ্ট্যান্ডগুলোতেও।

লাঠি নিয়ে সিএনজি নিয়ন্ত্রনের নামে সন্ত্রাসী কায়দায় চাঁদা আদায় করায় আইন শৃংখলা রক্ষা বহিনীর সদস্যরা কয়েকবার অভিযান চালিয়ে চাঁদা আদায়কারীদের আটক করা হলেও বন্ধ হয়নি চাঁদা আদায়।

কাপ্তাই রাস্তার মাথা চালক সমিতির বিষয়ে কথা বলতে চাইলে চালক সমিতির কোনও নেতা এই নিয়ে কথা বলতে রাজি হয়নি। সকলের দাবি পূর্বের ন্যায় শান্তি বজায় থাকুক আর নব্য ডাকাতদের হাত থেকে এ এলাকা মুক্ত করতে সংশ্লিষ্ঠ প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেন এলাকাবাসী।