ঢাকা, বৃহস্পতিবার - ১৩ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

চকরিয়ায় ছাগলে বাদাম গাছ খাওয়ায় সংঘর্ষে আহত ৮, নিহত ১

ছবিঃ সংগৃহীত

Share on facebook
Share on whatsapp
Share on twitter
Share on linkedin

কক্সবাজারের চকরিয়ায় ছাগলে ক্ষেতের বাদাম গাছ খাওয়াকে কেন্দ্র করে দুই পরিবারের সংঘর্ষে এক নারী নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন উভয় পক্ষের আটজন।

শুক্রবার (৩ মার্চ) সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে চকরিয়া উপজেলার সুরাজপুর-মানিকপুর ইউনিয়নের ৮ নম্বর ওয়ার্ডের পাহাড়তলী এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

চকরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) চন্দন কুমার চক্রবর্তী এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

নিহত কুলছুমা বেগম চকরিয়ার সুরাজপুর-মানিকপুর ইউনিয়নের ৮ নম্বর ওয়ার্ডের পাহাড়তলী এলাকার নুর মোহাম্মদের স্ত্রী। রাতে তাৎক্ষণিক আহতদের নাম জানাতে পারেনি পুলিশ।

আরও পড়ুন  বায়েজিদে টিসিবি'র ২ হাজার ৫৫২ লিটার সয়াবিন জব্দ, আটক ৪

স্থানীয়দের বরাতে ওসি বলেন, শুক্রবার বিকালে চকরিয়ার সুরাজপুর-মানিকপুর ইউনিয়নের পাহাড়তলী এলাকার জকরিয়ার একটি ছাগল প্রতিবেশী নুর মোহাম্মদের ক্ষেতের বেশকিছু বাদাম গাছ খেয়ে ফেলে। এ নিয়ে দুই পরিবাবের লোকজনের মধ্যে তর্কাতর্কি ও একপর্যায়ে সংঘর্ষ বাঁধে।

স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান আজিমুল হক আজিম বলেন, বিকালে জকরিয়ার একটি ছাগল নুর মোহাম্মদের ক্ষেতের বেশকিছু বাদাম গাছ খেয়ে ফেলে। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে নুর মোহাম্মদের স্ত্রী কুলছুমা বেগম ছাগলটি বেঁধে রাখেন। পরে জকরিয়ার স্ত্রী ছাগলটি আনতে গেলেও দেননি। এ নিয়ে সন্ধ্যায় স্থানীয় ইউপি সদস্য উভয়পক্ষের লোকজনের মধ্যে সালিশের মাধ্যমে বিরোধ মীমাংসা করেন। পরে ছাগলটি ফেরত দেওয়া হয়।

আরও পড়ুন  কর্ণফুলীতে যুবকের মরদেহ উদ্ধার, ৩ দিন পেরিয়ে গেলেও মেলেনি পরিচয়

সালিশের পর উভয়পক্ষের লোকজন বাড়িতে ফিরে যায়। পরে ঘটনার জেরে কুলছুমার সঙ্গে জকরিয়ার স্ত্রীর মধ্যে তর্কাতর্কি হয়। এ নিয়ে একপর্যায়ে দুই পরিবারের পুরুষ সদস্যরাসহ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন। এতে ধারালো অস্ত্র ও লাঠিসোঁটার আঘাতে উভয়পক্ষের অনন্ত ৯ জন আহত হন।

তিনি আরও বলেন, আহতদের উদ্ধার করে চকরিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আসলে চিকিৎসক পাঁচজনকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠায়। সেখানে নেওয়ার পথে কুলছুমা বেগমের মৃত্যু হয়।

আরও পড়ুন  শীর্ষ শিবির 'ক্যাডার সাজ্জাদ'র সহযোগী আবদুল্লাহ মামুন আটক

মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন ওসি চন্দন কুমার চক্রবর্তী।

ট্যাগঃ

আলোচিত সংবাদ