ঢাকা, রবিবার - ২১শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

চট্টগ্রামের রাস্তায় লোকাল এসি বাস ‘চট্টলা চাকা’

ছবি- সংগৃহীত

Share on facebook
Share on whatsapp
Share on twitter
Share on linkedin

চট্টগ্রাম নগরীতে জনসংখ্যা বাড়তে থাকলেও সে পরিমাণ পরিবহন নেই। ফলে দাঁড়িয়ে বা ঠাসাঠাসি করে লোকাল বাসগুলোতে করে গন্তব্যে যেতে হয় বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষকে।

শহরে শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত (এসি) বাস সার্ভিসের জন্য যাত্রীদের দীর্ঘদিনের দাবি ছিল। সেই দাবি ও চাহিদার কথা ভেবে আট বছর পর নগরীতে আবারও নামলো এসি বাস।

মঙ্গলবার (২ জুলাই) থেকে ১০টি বাস সড়কে চলতে দেখা যায়। জানা যায়, আরও ১০টি আসবে কয়েকদিনের মধ্যে।

এসি বাস সার্ভিস সংশ্লিষ্টরা জানান, যাত্রীদের নিরাপদ ও আরামদায়ক সেবা দিতেই নতুন এই এসি বাস সার্ভিস।

আরও পড়ুন  ইসরায়েল-হামাস নিয়ে ইলন মাস্কের সতর্কবার্তা

এই সার্ভিসের আওতায় শুরুতে প্রতিদিন সকাল সাড়ে ৭টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত প্রতি ত্রিশ মিনিট পর পর নগরীর কাপ্তাই রাস্তার মাথা, বহদ্দারহাট, জিইসি, ইপিজেড ও কাটগড় মোড় পর্যন্ত চলাচল করবে এই বাস।

প্রথমিকভাবে বহদ্দারহাট, মুরাদপুর, জিইসি, আগ্রাবাদ এবং নগরীর কাপ্তাই রাস্তার মাথা এলাকায় দুটি করে ১০ টি কাউন্টার তৈরি করা হয়েছে।

জানা যায়, প্রাথমিকভাবে কাপ্তাই রাস্তার মাথা থেকে আগ্রাবাদ পর্যন্ত ৫০ টাকা, আগ্রাবাদ থেকে কাঠগড় পর্যন্ত ৫০ টাকা এবং সরাসরি কাঠগড় থেকে কাপ্তাই রাস্তার মাথা পর্যন্ত ১০০ টাকা ভাড়ায় চলাচল করবে এই বাস।

আরও পড়ুন  কক্সবাজারের হোটেল থেকে তরুণীর মরদেহ উদ্ধার

 

তবে পুরোদমে শুরু হলে এই সড়কের প্রতিটি গুরুত্বপূর্ণ স্থানে তৈরি হবে কাউন্টার, সর্বনিম্ন ভাড়া রাখা হয়েছে ২০ টাকা।

এসি বাস সার্ভিস চট্টলা চাকা এক্সপ্রেসের নির্বাহী পরিচালক মো. শাহজাহান বলেন, চট্টলা চাকা নামের কাউন্টারভিত্তিক এই এসি বাস বন্দর নগরীতে চলবে মূলত রাজধানীর গুলশানে চলাচলরত ঢাকা চাকা এসি বাস সার্ভিসের আদলে।

আরও পড়ুন  চবির শাটল ট্রেনে নবজাতকের মরদেহ

বাসটির আসন ব্যবস্থাপনা হবে অনেকটা দূরপাল্লার বাসের আসন ব্যবস্থাপনার মতো। স্বয়ংক্রিয় বুকিং সিস্টেমের কারণে নির্ধারিত ৩৫টি আসনের অতিরিক্ত যাত্রী ওঠার সুযোগ থাকবে না বাসে।

এর আগে সোমবার (১লা জুলাই) বিকেল চারটায় হোটেল আগ্রাবাদে চট্টলা চাকা নামের নতুন এই বাস সার্ভিসের উদ্বোধন করেন সিটি মেয়র মো. রেজাউল করিম চৌধুরী।

এসময় বিশেষ অতিথি হিসেবে পুলিশ কমিশনার কৃষ্ণপদ রায় উপস্থিত ছিলেন। এছাড়াও অতিথি ছিলেন বিআরটিএ চট্টগ্রামের পরিচালক মো. মাসুদ আলম।

আলোচিত সংবাদ