ঢাকা, বুধবার - ২৮শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

চট্টগ্রামে ছবি ও ভিডিও ধারণ করে ব্ল্যাকমেইলিংয়ের অভিযোগে যুবক গ্রেপ্তার

ছবিঃ সংগৃহীত

Share on facebook
Share on whatsapp
Share on twitter
Share on linkedin

চট্টগ্রামে ব্যক্তিগত মুহূর্তের ছবি ও ভিডিও ধারণ করে ব্ল্যাকমেইলিংয়ের অভিযোগে করা মামলার আসামি মো. শেখ রাসেলকে (২৮) গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব-৭। 

শনিবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) দুপুর সাড়ে ১২টায় নগরীর টাইগারপাস এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন র‌্যাব-৭ এর সিনিয়র সহকারী পরিচালক (মিডিয়া) মো. নুরুল আবছার।

রাসেল ডবলমুরিং থানার মতিয়ারপুল এলাকার মৃত ফজল হকের ছেলে।

মো. নুরুল আবছার জানান, ভুক্তভোগী নারী ডবলমুরিং এলাকায় স্বামী-সন্তান নিয়ে বসবাস করতেন। তার স্বামী সৌদি আরব প্রবাসী ছিলেন। ২০১৭ সালে তার স্বামী দেশে আসেন। দেশে আসার পর আসামি রাসেল তার সাথে বন্ধুত্বের সম্পর্ক গড়ে তুলেন। এ সুযোগে প্রায়ই ভিকটিমের বাড়িতে আসা-যাওয়া করতো রাসেল। রাসেল তার মায়ের চিকিৎসার কথা বলে তার কাছ থেকে ৩ লাখ ঋণও নেন। এরপর ওই নারীর স্বামী বিদেশে চলে যান। ভিকটিমের স্বামী বিদেশ যাওয়ার আগে রাসেলকে ঋণের টাকা অল্প অল্প করে পরিশোধ করতে বলেন এবং তার পরিবারের খোঁজখবর রাখতে বলেন। সেই সুবাদে টাকা দেয়ার জন্য তাদের বাড়িতে এসে ওই নারীর সাথে রাসেল বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক গড়ে তুলেন।

আরও পড়ুন  বাঁশখালীর ঋষিধামে একুশতম আন্তর্জাতিক ঋষিকুম্ভ মেলা শুরু আজ

তিনি আরও বলেন, এক পর্যায়ে রাসেল ওই নারীর ব্যক্তিগত মুহূর্তের কিছু ছবি ও ভিডিও মোবাইলে ধারণ করে রাখে। পরে রাসেল সেই ছবি ও ভিডিও দেখিয়ে ওই নারীকে শারীরিক সম্পর্ক করার প্রস্তাব দেয়। প্রস্তাবে রাজি না হলে ছবি ও ভিডিও স্বামীসহ সবার কাছে ছড়িয়ে দিয়ে তার সংসার ভেঙে দেওয়ার হুমকি দেয়। ভিকটিম তার প্রস্তাবে রাজি না হলে রাসেল ক্ষিপ্ত হয়ে ছবি ও ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেয়। এ ঘটনায় ভুক্তভোগী নারী ২০০২ সালের ১৫ জানুয়ারি ডবলমুরিং থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) দায়ের করেন। ডবলমুরিং থানা আসামিকে থানায় ডেকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে আসামি তা স্বীকার করেন। এ ধরনের কাজ আর না করার শর্তে পুলিশ তাকে ছেড়ে দেয়। কিন্তু ছাড়া পাওয়ার পর রাসেল ক্ষিপ্ত হয়ে ফের ওই নারীর ব্যক্তিগত মুহূর্তের ছবি ও ভিডিও এডিট করে আত্মীয়-স্বজন ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেয়। এ ঘটনায় ভুক্তভোগী নারী ফের ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে সাইবার ট্রাইব্যুনালে একটি পিটিশন দায়ের করেন। মামলা দায়েরের পর আসামি এলাকা ছেড়ে আত্মগোপনে চলে যায়। পরে আদালত তার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন।

আরও পড়ুন  সাতকানিয়ায় ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে ২১ পরিবারের বসতঘর পুড়ে ছাই

এ ঘটনায় গতকাল শনিবার দুপুর সাড়ে ১২টায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে নগরীর টাইগারপাস এলাকা থেকে আসামি রাসেলেকে গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তার আসামিকে সংশ্লিষ্ট থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

ট্যাগঃ

আলোচিত সংবাদ