ঢাকা, বুধবার - ২৮শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

জুনে রামপাল বিদ্যুৎ কেন্দ্রের দ্বিতীয় ইউনিট চালু হবে

ছবিঃ সংগৃহীত

Share on facebook
Share on whatsapp
Share on twitter
Share on linkedin

সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে আগামী জুনে রামপাল তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রের দ্বিতীয় ইউনিট চালু হবে বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতীয় হাই কমিশনার প্রনয় ভার্মা। 

শনিবার (৪ ফেব্রয়ারি) সকালে বাংলাদেশ ভারতের যৌথ মালিকানাধীন রামপাল তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্র পরিদর্শন শেষে তিনি এসব কথা বলেন।

ভারতীয় হাই কমিশনার প্রণয় কুমার ভর্মা বলেছেন, কয়লা সংকট একটা অপারেশনাল ইস্যু, এটা নিয়ে আমরা কাজ করছি। আশা করছি এই সংকট কেটে যাবে। আগামী তিন মাসের মধ্যে রামপাল বিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্রের দুটি ইউনিট পুরোপুরি চালু হবে।

সব ধরণের পরিবেশগত বিষয় বিবেচনা করে প্লান্ট পরিচালনা করা হচ্ছে। যার কারণে সুন্দরবনের কেন ক্ষতি হবে না বলে উল্লেখ করেছেন তিনি।

আরও পড়ুন  যুক্তরাষ্ট্র কখনও অন্যের ভূ-রাজনৈতিক বিষয়ে হস্তক্ষেপ করে না: পিটার হাস

এসময়ে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ ইন্ডিয়া ফ্রেন্ডশিপ পাওয়ার কোম্পানি বিআইএফপিসিএল’র ব্যবস্থাপনা পরিচালক সাইদ আকরাম উল্লাহ, প্রকল্প পরিচালক সুভাষ চন্দ্র পান্ডেসহ তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রের কর্মকর্তারা।

এদিকে ইন্দনেশিয়া থেকে কয়লা সরবরাহ বিঘ্নিত হওয়ায় হঠাৎ বন্ধ হয়ে যায় রামপাল কেন্দ্রের বিদ্যুৎ উৎপাদন। ডলার রিলিজ করতে কিছুটা সময় লাগার কারণে এই সমস্যার সৃষ্টি হয়। তবে সে সমস্যার সমাধান হওয়ায় নতুন করে কয়লা নিয়ে একটি জাহাজ সেখান থেকে রওনা দিয়েছে। আগামী এক সমপ্তাহের মধ্যে কয়লাবাহী জাহাজটি রামপাল বিদ্যুৎ কেন্দ্রে এসে পৌঁছাবে।

আরও পড়ুন  সারা বছর যাওয়া যাবে সেন্টমার্টিন, চালু হচ্ছে ‘সি প্লেন’

বাংলাদেশে-ইন্ডিয়া ফ্রেন্ডশিপ পাওয়ার কোম্পানির প্রাইভেট লিমিটেডের ব্যাবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) সাইদ একরাম উল্লাহ শনিবার (৪ ফেব্রুয়ারি) সকালে এই তথ্য জানান।

তিনি এদিন আরও বলেন, এখন থেকে নিয়মিতভাবেই কয়লা আসবে। এর ফলে জুন মাস থেকে আবার কয়লা দিয়ে বিদ্যুৎ উৎপাদন করবে রামপাল বিদ্যুৎ কেন্দ্র। এছাড়া দ্বিতীয় ইউনিট থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদন করতে জোরেসোরে কাজ চলছে। সবমিলিয়ে ১৩২০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন করতে আর কোনো সমস্যা হবেনা।

এক প্রশ্নের জবাবে আনোয়ারুল আজিম বলেন, কয়লা আমদানি করতে ঠিকমত ডলার প্রেমেন্ট করতে পারলে আর কোন সমস্য হবেনা। একের পর এক কয়লাবাহী জাহাজ আসলে নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যেই সবকিছু হয়ে যাবে।

আরও পড়ুন  ঢাকায় আসছেন বিশ্বব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক

গত ১৪ জানুয়ারি ডলার সংকটের জেরে কয়লা আমদানি না হওয়ায় রামপাল তাপ বিদ্যুৎকেন্দ্র থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদন বন্ধ হয়ে যায়। ডলার সংকটের কারণে লেটার অব ক্রেডিট (এলসি) ঋণপত্র খুলতে না পারায় কয়লার আমদানি বন্ধ আছে। এর জেরে এই অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে জানায় কর্তৃপক্ষ।

এছাড়া বাণিজ্যিক উৎপাদন শুরুর মাত্র ২৭ দিনের মাথায় গত ১৪ জানুয়ারি সকাল থেকে কয়লা না থাকায় রামপাল বিদ্যুৎকেন্দ্রের ৬৬০ মেগাওয়াট উৎপাদন ক্ষমতার প্রথম ইউনিটটি বন্ধ করে দেওয়া হয়।

ট্যাগঃ

আলোচিত সংবাদ