ঢাকা, বুধবার - ২৮শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

তুরস্ক-সিরিয়ায় ভূমিকম্পে মৃতের সংখ্যা ছাড়িয়েছে ৬ হাজার, ৩০ হাজারেরও বেশি আহত

ছবিঃ সংগৃহীত

Share on facebook
Share on whatsapp
Share on twitter
Share on linkedin

তুরস্ক ও সিরিয়ায় ভয়াবহ ভূমিকম্পের প্রায় ২ দিন পার হলেও একের পর এক উদ্ধার হচ্ছে লাশ। সিএনএনের সর্বশেষ তথ্যানুযায়ী মৃতের সংখ্যা ৬ হাজার ৩২৬ জন। আহতের সংখ্যা অন্তত ৩০ হাজার ৪৭৪।

তুরস্কের দুর্যোগ সংস্থার মতে, ক্ষতিগ্রস্ত ১০টি প্রদেশে মৃতের সংখ্যা ৪ হাজার ৫৪৪। এছাড়া অন্তত ৫ হাজার ৭৭৫টি ভবন বিপর্যস্ত হয়েছে। উদ্ধার অভিযানে দেশটির বিপর্যস্ত ১০টি প্রদেশে ৬০ হাজার ২১৭ জন উদ্ধারকর্মী নিয়োজিত আছেন বলেও জানায় সংস্থাটি।

অন্যদিকে সিরিয়ান সিভিল ডিফেন্স জানিয়েছে, দেশটিতে মোট মৃতের সংখ্যা ১৭৮২। এর মধ্যে ৯৭০ জন বিদ্রোহী নিয়ন্ত্রিত অঞ্চলের। দেশটির রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা সানা জানায়, বাশার আল আসাদ সরকার নিয়ন্ত্রিত এলাকায় মৃতের সংখ্যা ৮১২।

আরও পড়ুন  বিপৎসীমার কাছাকাছি তিস্তার পানি, ৫ উপজেলায় আবারও বন্যার আশঙ্কা

ভূমিকম্প ও তৎপরবর্তী অন্তত ১০০ পরাঘাতের প্রভাবে দেশদুটির হাজার হাজার ভবন ধসে পড়েছে। উদ্ধারকর্মীরা সর্বত্র উদ্ধার অভিযান চালালেও সবচেয়ে বেশি চিন্তা সিরিয়ার উত্তর-পশ্চিমাঞ্চল নিয়ে। এখানকার অন্তত ৪০ লক্ষ মানুষ যুদ্ধের কারণে আগে থেকেই মানবিক সাহায্যের ওপর নির্ভরশীল ছিল।

এদিকে বিপদের ওপর বিপদ হিসেবে হাজির হয়েছে অত্যন্ত ঠান্ডা আবহাওয়া। ক্ষতিগ্রস্ত অঞ্চলে পৌঁছাতে বেগ পেতে হচ্ছে উদ্ধারকর্মী ও ত্রাণ সহায়তাকারীদের। ধ্বংসাবশেষে আগুন জ্বালিয়ে নিজেদের উষ্ণ রাখার চেষ্টা করছেন ক্ষতিগ্রস্তরা।

আরও পড়ুন  রোহিঙ্গা ক্যাম্পে পুড়েছে পাঁচ শতাধিক ঘর, সন্দেহভাজন আটক

ভূমিকম্পের কারণে ক্ষতিগ্রস্ত তুরস্কের দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলের ১০টি প্রদেশে জরুরি অবস্থা জারি করেছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যেপ এরদোয়ান।

বিবিসি জানিয়েছে, ভূমিকম্প কবলিত এলাকাগুলোয় জাতিসংঘ, ইউরোপীয় ইউনিয়ন ও ন্যাটোসহ বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংস্থা এবং যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, চীন, রাশিয়া, ভারত, জাপান, ইরান ও ইরাক, অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ড, গ্রিসসহ বিভিন্ন দেশ থেকে সহায়তা পাঠানো হচ্ছে।

যুক্তরাষ্ট্রের ভূতত্ত্ব জরিপ (ইউএসজিএস) জানায়, গত সোমবার স্থানীয় সময় ভোর ৪টা ১৭ মিনিটে তুরস্কের মধ্য-দক্ষিণাঞ্চলীয় প্রদেশ গাজিয়ানতেপের শহর নুরদায়ির ২৬ কিলোমিটার পূর্বে প্রথম ভূমিকম্পটি আঘাত হানে। রিখটার স্কেলে এর মাত্রা ছিল ৭ দশমিক ৮। এর কেন্দ্রস্থল ছিল সমতলের ১৭ দশমিক ৯ কিলোমিটার গভীরে। ভূমিকম্পটি যখন আঘাত হানে তখন বেশির ভাগ মানুষ ঘুমিয়ে ছিলেন।

আরও পড়ুন  রাতেই ১৮ জেলায় বজ্রসহ বৃষ্টির পূর্বাভাস

নুরদায়ি শহরটি তুরস্ক ও সিরিয়ার সীমান্ত অঞ্চলে অবস্থিত। এই দুটি দেশ ছাড়াও লেবানন ও সাইপ্রাসে ভূমিকম্প অনুভূত হয়েছে। ৮০০ কিলোমিটার দূরের গাজা উপত্যকায়ও অনুভূত হয়েছে কম্পন।

একই দিন দুপুর দেড়টার দিকে ওই এলাকায় ৭ দশমিক ৫ মাত্রার আরও একটি ভূমিকম্প আঘাত হনে।

ট্যাগঃ

আলোচিত সংবাদ