ঢাকা, শুক্রবার - ২৩শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

বিড়ালছানার লোভ দেখিয়ে শিশু অপহরণের অভিযোগ

ছবিঃ সংগৃহীত

Share on facebook
Share on whatsapp
Share on twitter
Share on linkedin

চট্টগ্রাম নগরীর পাহাড়তলীতে বিড়ালছানার লোভ দেখিয়ে আবিদা সুলতানা আয়নী (১০) নামে এক শিশুকে অপহরণের অভিযোগে মামলার আবেদন করা হয়েছে। মামলায় মোহাম্মদ রুবেল (৩৫) নামে স্থানীয় এক তরকারি বিক্রেতাকে আসামি করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (২৮ মার্চ) চট্টগ্রাম নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-২ এর বিচারক শরমিন জাহানের আদালতে শিশুটির মা বিবি ফাতেমা বাদী হয়ে এ মামলার আবেদন করেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বাদীপক্ষের আইনজীবী গোলাম মাওলা মুরাদ।

এদিকে বিচারক অভিযোগ আমলে নিয়ে সরাসরি মামলা গ্রহণ করতে পাহাড়তলী থানার অফিসার ইনচার্জকে নির্দেশ দিয়েছেন।

আরও পড়ুন  টেকনাফে ফাঁকা গুলি ছুঁড়ে অস্ত্রের মুখে ব্যবসায়ীকে অপহরণ

গোলাম মাওলা মুরাদ বলেন, প্রলোভন দেখিয়ে শিশুকে অপহরণের অভিযোগে মামলার আবেদন করা হলে বাদীর বক্তব্য গ্রহণ করেন আদালত। মামলাটি আদালত পাহাড়তলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে (ওসি) এজাহার হিসেবে নিতে নির্দেশ দিয়েছেন।

মামলার অভিযোগে উল্লেখ করা হয়- ভুক্তভোগী শিশু নগরীর একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের চতুর্থ শ্রেণিতে পড়ে। তার মা এবং বাবা দুজনই পোশাক কারখানায় চাকরি করেন। কয়েকদিন আগে ভুক্তভোগী শিশু তার মাকে জানায়, স্কুলের এক বান্ধবী বিড়ালছানা কিনেছে। ওই সময় সে মাকে অনুরোধ করে, তাকেও একটি বিড়াল ছানা কিনে দেওয়ার। মা তাকে বেতন পেলে কিনে দেবে বলে আশ্বাস দেয়। সে তখন মাকে বলে রাস্তার তরকারি বিক্রেতা তাকে বিড়াল ছানা এনে দেবে। এরপর মা তাকে তার কাছে যেতে বারণ করে।

আরও পড়ুন  কাপ্তাইয়ে মনসা পূজাকে ঘিরে জমে উঠেছে ছাগলের বাজার

এ ঘটনার কয়েকদিন পর অর্থাৎ গত ২১ মার্চ ভুক্তভোগী শিশু স্কুলে গিয়ে আর ফিরে আসেননি। পরে সিসিটিভি ফুটেজ পর্যালোচনা করে ঘটনার দিন এবং তার আগের দিন ভুক্তভোগীকে মামলার অভিযুক্ত ব্যক্তির সঙ্গে কথা বলতে দেখা যায় বলে মামলার অভিযোগে উল্লেখ করা হয়।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে পাহাড়তলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, অপহরণের ঘটনায় শিশুটির পরিবার থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছে। আমরা এখন সেই জিডির সূত্র ধরে কাজ করছি। আদালতের নির্দেশনার কাগজপত্র এখনো আমাদের হাতে আসেনি। নির্দেশনা এলে সে অনুযায়ী কাজ করব।

আরও পড়ুন  জামালখানে এইচএসসি পাস করেই তিনি 'বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক'

ট্যাগঃ