ঢাকা, শনিবার - ১৩ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

বিদেশি মদসহ আটক ১, পলাতক মুলহোতা ছাত্রলীগ নেতা ‘ফয়সাল’

পলাতক মারুফ হাসান ফয়সাল (৩০)। ছবি- সংগৃহীত

Share on facebook
Share on whatsapp
Share on twitter
Share on linkedin

চট্টগ্রামের সন্দ্বীপ উপজেলার হারামিয়া ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ড এনাম নাহার পাশে একটি বসত বাড়ি থেকে ২৩ বোতল বিদেশি মদসহ আবু তাহের (৩৮)  নামে এক যুবককে আটক করেছে সন্দ্বীপ থানা পুলিশ।

মঙ্গলবার (২ এপ্রিল) রাত ১টার দিকে এনাম নাহার এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে ১ জনকে আটক করা হয়।

এ ঘটনায় দুইজনকে আসামি করা হয়েছে। ১নং আসামি আবু তাহের (৩৮) পিতা রুহুল আমিন। ২নং আসামি চট্টগ্রাম উত্তর জেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি মারুফ হাসান ফয়সাল (৩০) পলাতক রয়েছে। তাঁর পিতার নাম মোঃ সেলিম। তাঁর বাড়ি হারামিয়া ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডে।

আরও পড়ুন  নিবিড় পর্যবেক্ষণে খালেদা জিয়া, শয্যাপাশে কোকোর স্ত্রী শর্মিলা

স্থানিয়রা জানিয়েছেন, মারুফ হাসান ফয়সাল হারামিয়া ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের কমিশনার শাকিল উদ্দিন খোকনের বড় ভাইয়ের ছেলে। কমিশনার খোকনের প্রভাবে সে এসব অপকর্মের সঙ্গে যুক্ত হয়েছে। অনেকেই ভয়ে মুখ খোলে না এদের বিরুদ্ধে। এলাকায় চাঁদাবাজি, মদ-জুয়া, কিশোর গ্যাং পরিচালনা সহ নানান অভিযোগ রয়েছে তাঁর বিরুদ্ধে।

সন্দ্বীপ থানা পুলিশের সূত্রে জানা গেছে, গোপন তথ্যে খবর আসে এনাম নাহারের পাশে এক বসতবাড়িতে ইদ উপলক্ষে বিদেশি মদ মজুত করা আছে এই খবরে মধ্যে রাতে পুলিশ অভিযান পরিচালনা করে ২৩ বোতল ভারতীয় মদ সহ ১ জন কে আটক করে।

আরও পড়ুন  আওয়ামী লীগ বাংলাদেশে গণতন্ত্র স্থাপন করেছে: আইনমন্ত্রী

পুলিশ ও স্থায়ীন সূত্রে জানা যায়, আটককৃত ব্যক্তি একজন অটোরিকশা চালক, আটককৃত ব্যক্তিকে পুলিশ প্রাথমিক জিজ্ঞেসাকালে জনসম্মুখে আটককৃত ব্যক্তি বলেন এই মদের বোতলগুলো সন্দ্বীপ উপজেলা ছাত্রলীগ নেতা ও চট্টগ্রাম  উত্তর জেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি মাহরুফ হাসান ফয়সালের।

 

সন্দ্বীপ থানার পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কবির হোসেন বলেন,২৩ বোতল ভারতীয় মদ সহ ১ জনকে আটক করা হয়েছে। আটককৃত ব্যক্তিকে প্রাথমিক জিজ্ঞেসাবাদে জনসম্মুখে ফয়সাল নামের একজনের সম্পৃক্ততার কথা শিকার করেছে। এই বিষয়ে ২ জনকে আসামি করে মামলা হয়েছে।  অপর আসামিকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। মাদকবিরোধী অভিযান চলমান থাকবে।

আরও পড়ুন  কক্সবাজারের কটেজে অসামাজিক কার্যকলাপ, আটক ২৫

চট্টগ্রাম উত্তর জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক রেজাউল করিম বলেন, ছাত্রলীগের কোনও নেতা-কর্মী মাদক ব্যবসার সঙ্গে জড়িত থাকতে পারবে না। কেন্দ্রের সঙ্গে এ বিষয়ে আলোচনা করে তাকে অব্যাহতি দেওয়া হবে।

ট্যাগঃ