ঢাকা, শুক্রবার - ২৩শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

সন্দ্বীপে দুর্ধর্ষ ডাকাতি, হামলায় শিশু-নারীসহ একই পরিবারের আহত ৩

ছবিঃ সংগৃহীত

Share on facebook
Share on whatsapp
Share on twitter
Share on linkedin

সন্দ্বীপে একটি বসতঘরে দুর্ধর্ষ ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। এ সময় ডাকাতদের হামলায় শিশু ও নারীসহ একই পরিবারের তিনজন গুরুতর আহত হয়েছেন।

রবিবার (৫ মার্চ) ভোরে উপজেলার মগধরা ইউনিয়নের এক নম্বর ওয়ার্ডে এই ঘটনা ঘটে। আহতদের চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

জানা গেছে, আজ ভোরে সংঘবদ্ধ ডাকাতদল মগধরা ইউনিয়নের এক নম্বর ওয়ার্ডের ব্যবসায়ী মুস্তাফিজুর রহমান আজিমের ঘরে ঢুকে ডাকাতি করে। এ সময় নগদ টাকা ও মূল্যবান গয়না বের করে দেওয়ার জন্য ডাকাতরা পরিবারের সদস্যদের মারধর করতে থাকে। ডাকাতরা গৃহকর্তা হার্ডওয়্যার ব্যবসায়ী মুস্তাফিজুর রহমান আজিমের বুকসহ শরীরের বিভিন্ন অংশে কুপিয়ে মারাত্মকভাবে জখম করে। একইসাথে গৃহকর্ত্রী ও সন্দ্বীপ পাবলিক হাই স্কুলের শিক্ষিকা মাইমুনা খানম নিপা ও তার কন্যা শিশুকেও মারধর করে। এ সময় ডাকাতরা তাদের নগদ টাকা, স্বর্ণালংকার ও মোবাইলসহ দামী জিনিসপত্র লুট করে নিয়ে যায়।

আরও পড়ুন  পটিয়ায় 'নৌকা'র সঙ্গে লড়বেন ৭ প্রার্থী

আহত স্কুল শিক্ষিকা নিপার ভাই তুহিন জানান, রবিবার ভোরে ডাকাতদল আমার বোনের ঘরে ডাকাতি করে। তাদের ৬ জন অস্ত্র নিয়ে ঘরে ঢুকে টাকা ও মূল্যবান জিনিসপত্রের জন্য বেধড়ক মারধর করে ও কোপাতে থাকে। আমার ভগ্নিপতি আজিমের দোকানে হালখাতা চলছিল। তারা নগদ টাকা, স্বর্ণালংকার ও মোবাইল ফোন নিয়ে যায়। পুরো ঘর তছনছ করে গেছে। আজিম চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ১৯ নম্বর ওয়ার্ডে ভর্তি রয়েছেন।

আরও পড়ুন  পটিয়ার বুড়াকালি মন্দিরে দুর্ধর্ষ চুরির ঘটনায় সন্দেহভাজন গ্রেপ্তার ২

ডাকাতির ঘটনায় সন্দ্বীপ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সম্রাট খীসা ও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শহীদুল ইসলাম এবং মগধরা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এসএম আনোয়ার হোসেন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

ওসি শহীদুল ইসলাম জানান, ডাকাতির ঘটনায় জড়িতদের ধরতে অভিযান চলছে।

ট্যাগঃ