ঢাকা, রবিবার - ১৯শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

সরকারকে ধাক্কা দিতে গিয়ে বিএনপি’র কোমর ভেঙে গেছে: তথ্যমন্ত্রী

ছবিঃ সংগৃহীত

Share on facebook
Share on whatsapp
Share on twitter
Share on linkedin

সরকারকে ধাক্কা দিতে গিয়ে বিএনপির কোমর ভেঙে গেলেও ষড়যন্ত্র থেমে নেই বলে দাবি করেছেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক, তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী হাছান মাহমুদ।

তিনি বলেন, সরকারকে ধাক্কা মারতে গিয়ে বিএনপির কোমর ভেঙে গেছে, তাদের বর্তমান কর্মকাণ্ডের মাধ্যমেই তার পরিস্ফুটন হয়েছে। কিন্তু বিএনপির ষড়যন্ত্র থেমে নেই। তাদের ষড়যন্ত্র আগেও ছিল, এখনও আছে।

বৃহস্পতিবার ২ ফেব্রুয়ারি) তথ্য অধিদপ্তরের সম্মেলন কক্ষে এক অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন হাছান মাহমুদ।

ডিসেম্বরের পর থেকে বিএনপির কর্মচাঞ্চল্য না থাকা নিয়ে এক প্রশ্নের জবাবে তথ্যমন্ত্রী বলেন, বিএনপি বলেছিল ডিসেম্বর মাসেই সরকারকে বিদায় করে দেবে, সরকারকে ধাক্কা মেরে ফেলে দেবে। কিন্তু সরকারকে ধাক্কা দিতে গিয়ে তারা নিজেরাই পড়ে গেছে। এরপর থেকে তারা এখন হাঁটা শুরু করেছে। বিএনপি অনুধাবন করতে পেরেছে যে, সরকারকে ধাক্কা মারলে লাভ হয় না; সরকারের ভিত, আওয়ামী লীগের ভিত অনেক গভীরে। আশা করবো বিএনপি গণতান্ত্রিক আন্দোলনের মধ্যেই থাকবে, গণতন্ত্রের পথেই হাঁটবে।

আরও পড়ুন  আ. লীগে ‘জনপ্রিয় স্বতন্ত্র’ প্রার্থীরা বড় চ্যালেঞ্জ

হাছান মাহমুদ আরও বলেন, বিএনপি ২০০৮ সালে নির্বাচনে ২৯টি আসন পেয়েছিল, পরে উপনির্বাচনে ৩০টি অতিক্রম করেছে। ২০১৪ সালে নির্বাচন বর্জন করেছিল। ২০১৮ সালে ৬টি আসন পেয়েছিল। আগামী নির্বাচনেও তাদের সম্ভাবনা যে নেই সেটি তারা জানে, জানে বলেই তারা নির্বাচন নিয়ে, নির্বাচনকে বিতর্কিত করার জন্য, নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করার জন্য এবং মানুষকে নির্বাচনবিমুখ করার জন্য নানা ধরণের কথাবার্তা বলছে।

আরও পড়ুন  নির্বাচনে অংশ নিচ্ছেন বিএনপি'র ১৫ কেন্দ্রীয় নেতা: ওবায়দুল কাদের

উকিল আব্দুস সাত্তারকে ধরে রাখতে না পারাকে বিএনপির বড় ব্যর্থতা বলে মনে করেন হাছান মাহমুদ। ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নির্বাচন মাগুরার নির্বাচনকেও হার মানিয়েছে বলে বিএনপি মহাসচিবের বক্তব্যের জবাবে তথ্যমন্ত্রী বলেন, সেখানে যেহেতু আওয়ামী লীগের কোনো প্রার্থী ছিল না, সেহেতু আওয়ামী লীগের কর্মী-সমর্থকরা যে কাউকেই পছন্দ করতে পারে। সেটি তাদের নিজস্ব ব্যাপার। সেখানে কারো জন্য কাজ করার দলীয় কোনো নির্দেশনা ছিল না। যে যার পছন্দ মতো প্রার্থীর পক্ষে কাজ করেছে। আর ব্রাহ্মণবাড়িয়া আসনে আমরা প্রার্থী দেইনি সুতরাং সেখানে উকিল আব্দুস সাত্তার সাহেবকে বিএনপি ধরে রাখতে পারেনি, এটা তো বিএনপিরই বড় ব্যর্থতা।

সরকারের উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ডের ওপর ৪৫টি ফিচারের সংকলন নিয়ে তথ্য অধিদপ্তর প্রকাশিত ‘উন্নয়নের নব দিগন্ত’ গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন করেন তথ্যমন্ত্রী। এ সময় তিনি বলেন, গত ১৪ বছরে আমাদের দেশের আমূল পরিবর্তন হয়েছে। আমরা এই পরিবর্তনের মধ্য দিয়ে যাচ্ছি বিধায় আমাদের কাছে পরিবর্তনটা এতো বেশি অনুভূত হয় না। একটু পেছনে ফিরে তাকালে অনুধাবন করতে পারি- আমরা কোথায় ছিলাম এখন কোথায় এসে দাঁড়িয়েছি।

আরও পড়ুন  মার্কিন রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে আজ কোনও বৈঠক হয়নি: মির্জা ফখরুল

প্রধান তথ্য কর্মকর্তা মো. শাহেনুর মিয়া, জ্যেষ্ঠ উপপ্রধান তথ্য কর্মকর্তা জালাল উদ্দীন, জ্যেষ্ঠ উপপ্রধান তথ্য কর্মকর্তা খালেদা বেগম ‘উন্নয়নের নব দিগন্ত’ গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

ট্যাগঃ

আলোচিত সংবাদ