ঢাকা, শুক্রবার - ২৩শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে মাঝরাতে ফের সংঘর্ষ, আহত ১২

ছবিঃ সংগৃহীত

Share on facebook
Share on whatsapp
Share on twitter
Share on linkedin

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) ছাত্রদের আবাসিক হলের একটি কক্ষ দখল নিয়ে ছাত্রলীগের একাংশের মধ্যে মাঝরাতে ফের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে অন্তত ১২ জন নেতাকর্মী আহত হয়েছেন।

সোমবার (২১ ফেব্রুয়ারি) দিবাগত রাত ১২টার পর চবি ছাত্রলীগের বিজয় গ্রুপের দুই অংশ আলাওল হলের একটি কক্ষ নিয়ে এই সংঘর্ষে জড়ায়।

রাত দেড়টা পর্যন্ত এ সংঘর্ষ চলে। এরপর প্রক্টরিয়াল বডি ও পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। সংঘর্ষের এ ঘটনায় জড়িত বিজয় গ্রুপের দুটি অংশের নেতাকর্মীরা একে অপরকে দোষারোপ করছেন।

আরও পড়ুন  বোয়ালখালীতে বাস-সিএনজি সংঘর্ষে ৫ জন নিহতের ঘটনায় চালক গ্রেপ্তার

গত বছর ৩১ জুলাই চবি ছাত্রলীগের কমিটিতে পদ পাওয়া ও নেতৃত্ব দেওয়াকে কেন্দ্র করে বিজয় গ্রুপ দুটি ভাগে বিভক্ত হয়ে পড়েছে। একটি পক্ষ আলাওল এবং এ এফ রহমান হলের অবস্থান নেয়। আরেক পক্ষের সদস্যরা সোহরাওয়ার্দী হলে থাকেন। সোহরাওয়ার্দী হলের নেতৃত্ব দেন শাখা ছাত্রলীগের সহসভাপতি নজরুল ইসলাম ও পদবঞ্চিত দেলোয়ার হোসেনসহ কয়েকজন নেতা। আর আলাওল এবং এ এফ রহমান হলের নেতৃত্ব দিচ্ছেন যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ ইলিয়াছ।

আরও পড়ুন  লোহাগাড়ায় আগুনে ৭ বসতঘর পুড়ে ছাই

দুই ভাগে বিভক্ত হওয়ার পরেও সোহরাওয়ার্দী হলে অবস্থান নেওয়া নজরুল-দেলোয়ার গ্রুপের বেশ কয়েকটি কক্ষ এখনও এ এফ রহমান ও আলাওল হলে রয়েছে। তবে কয়েকদিন আগে আলাওল হলের ৪৪২ নম্বর কক্ষটি দখল নিয়েছে ইলিয়াছের অনুসারীরা। এ নিয়ে রাত ১০টার দিকে ওই দুই পক্ষের মধ্যে তর্কতর্কি হয়। এর জের ধরে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। সংঘর্ষের সময় উভয় পক্ষই রামদা, লাঠিসোঁটা নিয়ে একে অপরের ওপর চড়াও হয়। ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে। এতে অন্তত ১২ জন আহত হন। আহত নেতাকর্মীদের অনেকেই বিশ্ববিদ্যালয়ের চিকিৎসা কেন্দ্র থেকে চিকিৎসা নিয়েছেন।

আরও পড়ুন  ফুলকলি'কে ভ্রাম্যমাণ আদালতের ৫ লাখ টাকা জরিমানা

বিশ্ববিদ্যালয়ের চিকিৎসা কেন্দ্রের কর্তব্যরত চিকিৎসক শুভাশিস চৌধুরী বলেন, মারামারির ঘটনায় ১২ জন চিকিৎসা নিয়েছেন। তাঁদের শরীরে ইটপাটকেল নিক্ষেপের চিহ্ন ছিল। একজনের আঘাত গুরুতর হওয়ায় তাকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর শহীদুল ইসলাম বলেন, সংঘর্ষের ঘটনায় দুই পক্ষই একে অপরকে দোষারোপ করছেন। তাঁদেরকে লিখিত অভিযোগ দিতে বলা হয়েছে। অভিযোগ অনুযায়ী তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

ট্যাগঃ