ঢাকা, সোমবার - ২০শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

বিএনপি ক্ষমতায় এলে দেশ হবে সাম্প্রদায়িকতার অভয়ারণ্য: সেতুমন্ত্রী

ছবিঃ সংগৃহীত

Share on facebook
Share on whatsapp
Share on twitter
Share on linkedin

বিএনপি ক্ষমতায় এলে দেশ হবে সাম্প্রদায়িকতার অভয়ারণ্য, মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

শনিবার (১৮ মার্চ) রাজধানীর ধোলাইখালে বঙ্গবন্ধুর ১০৩ তম বাষির্কী উপলক্ষে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগ আয়োজিত এক আলোচনা সভায় এ কথা বলেন তিনি।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, সাম্প্রদায়িকতার ঠিকানা হচ্ছে বিএনপি। এ দলের হাতে ক্ষমতা গেলে বাংলাদেশ সাম্প্রদায়িকতার অভয়ারণ্যে পরিণত হবে।

নির্বাচনে অংশ নিয়ে বিএনপিকে জনপ্রিয়তার প্রমাণ দেওয়ার আহ্বান জানিয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, বিএনপির যদি এতো জনপ্রিয়তা থাকে তাহলে নির্বাচনে অংশ নিয়ে তা প্রমাণ করুক। নির্বাচনে অংশ নিলে দেখা যাবে বিএনপির পায়ের নিচে কত মার্টি আছে। আওয়ামী লীগ নির্বাচনে জিতুক আর হারুক সবসময় এদেশের মানুষের পাশে ছিল, থাকবে।

আরও পড়ুন  সিঙ্গাপুরের উদ্দেশ্যে ঢাকা ছাড়লেন ওবায়দুল কাদের

ওবায়দুল কাদের বলেন, যে পাকিস্তানের রিজার্ভ ৩.৫ বিলিয়ন ডলার, মির্জা ফখরুলদের কাছে সে দেশ নাকি ভালো। দেখতে ভদ্রলোক, মনে হলেও অন্তরে তার বিষ।

বিএনপি ক্ষমতায় গেলে বাংলাদেশকে দুর্নীতিতে আবারও চ্যাম্পিয়ন করবে বলে মন্তব্য করে আওয়ামী লীগের শীর্ষ এই নেতা বলেন, দেশ থেকে অর্থ পাচারকারী তারেক জিয়া লন্ডনে আছে। বিএনপি ক্ষমতায় গেলে তারেক দেশে ফিরবে। দুর্নীতিতে বাংলাদেশকে আবারও চ্যাম্পিয়ন করবে।

ক্ষমতাসীন সরকারের অধীনে আসন্ন জাতীয় নির্বাচন আয়োজনের বিষয়ে মন্ত্রী বলেন, আগামী নির্বাচন সংবিধান অনুযায়ী যথাসময় অনুষ্ঠিত হবে। সংবিধানের বাইরে যাওয়ার কোনও সুযোগ নেই। এদেশে তত্ত্বাবধায়ক সরকার আর আসবে না। তাদের আন্দোলন এখন খাদে পড়ে গেছে। বিএনপির আন্দোলন জখম হয়ে গেছে।

আরও পড়ুন  প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে রওশন এরশাদের সৌজন্য সাক্ষাৎ

তিনি বলেন, আসন্ন রমজানে সাধারণ মানুষের কষ্ট লাঘব করতে সরকার বেশি দামে নিত্য পণ্য কিনে কম দামে বিক্রি করছেন। এ দেশে শেখ হাসিনা সাধারণ মানুষকে নিয়ে যেভাবে চিন্তা করেন আর কেউ তা করেন না।

তিনি আরও বলেন, আওয়ামী লীগ কখনো চুরি করে না। শেখ হাসিনার পরিবারের মতো এদেশে সৎ ও নিষ্ঠাবান পরিবার একটাও নেই। এই পরিবারের কাছে থেকে অনেক কিছু শেখার আছে। শেখ হাসিনা চুরি করলে পদ্মা সেতু হতো না, মেট্রোরেল হতো না, এক্সপ্রেসওয়ে হতো না, চট্টগ্রামে কর্ণফুলী টানেল হতো না। আওয়ামী লীগ কখনো হাওয়া ভবন তৈরি করেনি, হাওয়া ভবন বন্ধ করেছে।

আরও পড়ুন  এক দফা আন্দোলন নিয়ে মাঠে নামছে বিএনপি

এসময় আরও বক্তব্য দেন আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া, ডা. মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন, অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম, কার্যনির্বাহী সদস্য সানজিদা খানম, ঢাকা-৫ আসনের সংসদ সদস্য মনিরুল ইসলাম মনু, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হুমায়ুন কবির প্রমুখ।

ট্যাগঃ

আলোচিত সংবাদ